ঢাকা - মে ২৮, ২০২২ : ১৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯

ইউক্রেন ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া, সমাধান নিয়ে শঙ্কায় দু’পক্ষই

নিউজ ডেস্ক
জানুয়ারি ২১, ২০২২ ২২:০৭
৩৭ বার পঠিত

ইউক্রেন ইস্যুতে উত্তেজনা বিরাজ করছে আমেরিকা ও রাশিয়ার মধ্যে। চলছে হুমকি পাল্টা হুমকির ঘটনাও। এ উত্তেজনা থামানোর লক্ষ্যে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় আলোচনায় বসেছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। যে কোনো মুহূর্তে রাশিয়া ইউক্রেনে আগ্রাসন চালাতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে আসছে পশ্চিমা বিশ্ব। দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের এই আলোচনায় রাশিয়াকে আগ্রাসনের পথ থেকে সরানোর চেষ্টা করা হবে বলে জানা যাচ্ছে।

এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেছেন, তার মতে জেনেভাতে এ সঙ্কটের সমাধান হবে না। রাশিয়ার পক্ষ থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভও বলেছেন, রাশিয়া একদম স্পষ্টভাবে তার প্রস্তাবগুলো তুলে ধরেছে এবং আমরা একদম স্পষ্ট উত্তরই চাই। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

উদ্বোধনী বক্তব্যে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দাঁড়িয়ে আছি। যদিও এই আলোচনায় সবকিছু সমাধান হয়ে যাবে এমন আশা যুক্তরাষ্ট্র কিংবা রাশিয়া কেউই করছে না। তবে আমরা পরীক্ষা করে দেখতে চাই যে কূটনীতি এখনোও একটি কার্যকরি পদ্ধতি।

সুইজারল্যান্ডের একটি বিলাসবহুল হোটেলে দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে শুক্রবার সাক্ষাৎ হয়। এতে ব্লিনকেন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, রাশিয়া যদি ইউক্রেনে আগ্রাসন চালায়, তাহলে পশ্চিমা বিশ্ব একত্রিত হয়ে ভয়াবহ প্রতিক্রিয়া দেখাবে।

অপরদিকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন পশ্চিমা দেশগুলোকে স্পষ্ট কিছু শর্ত দিয়ে বলেছেন, রাশিয়া তার নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন। তাই তার দাবি হচ্ছে, প্রতিবেশী ইউক্রেনকে সামরিক জোট ন্যাটোর অন্তর্ভুক্ত করা যাবে না। একইসঙ্গে পূর্ব ইউরোপে ন্যাটোর যত কার্যক্রম রয়েছে তা বন্ধ করতে হবে। এ অঞ্চলে অস্ত্র পাঠানো থেকে বিরত থাকতে হবে। ন্যাটোকে আগামী সপ্তাহের মধ্যে এর উত্তর দিতে হবে।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে ব্লিনকেনও মার্কিন নাগরিক পল হেলান ও ট্রেভর রিডের মুক্তির দাবি করেছেন। তিনি বলেন, এ দুজনকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। তাই অবিলম্বে তাদের মুক্তি দিতে হবে। তবে বিচার বিভাগের কোনো বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না জানিয়ে দিয়েছেন ক্রেমনিল।

আরআই



মন্তব্য