ঢাকা - সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১ : ১০ আশ্বিন, ১৪২৮

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচে হাতাহাতি, ম্যাচ স্তগিত

নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ০৬, ২০২১ ১২:২৯
১৭ বার পঠিত

কাতার বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মধ্যকার ম্যাচটি স্তগিত করা হয়েছে। ম্যাচের শুরুতেই ব্রাজিলের স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের ঝগড়া শুরু হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে হাতাহাতিতে রূপ নেয়। এ জন্য ম্যাচটি স্তগিত করে লাতিন আমেরিকার ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা কনমেবল।

এক টুইট বার্তায় কনমেবল আজ (৬ সেপেম্বর) রাত আড়াইটায় জানায়, আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের মধ্যকার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচটি রেফারি স্থগিত করেছে। ম্যাচ রেফারি ও ম্যাচ কমিশনার ফিফার শৃঙ্খলা কমিটির কাছে এ নিয়ে প্রতিবেদন দেবে। তার ওপর ভিত্তি করে এই ম্যাচের ভবিষ্যৎ ঠিক করা হবে। এই প্রক্রিয়া বর্তমান নিয়ম দৃঢ়ভাবে অনুসরণ করেই এগোবে। বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব ফিফার প্রতিযোগিতা। এ ব্যাপারে সকল সিদ্ধান্তের ক্ষমতা আছে কেবল ওই প্রতিষ্ঠানেরই।

বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে মাঠে নামে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা। ম্যাচের ৫ম মিনিটে ব্রাজিলের স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে ঝগড়া শুরু হয়। মূলত সাইড লাইনের পাশে অচেনা একজনকে দেখতে পাওয়া যায়। আর্জেন্টিনার দুই খেলোয়াড় নিকোলাস ওতামেন্দি ও মার্কোস আকুনা তাদের পরিচয় জানতে চান। সেসময় তাদের ঘিরে ধরেন অনেকে। মুহূর্তের মধ্যে হাতাহাতি হয়ে যায়। পরে দ্রুত এসে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন আর্জেন্টাইন কোচ লিওনেল স্কালোনি। কিন্তু সেই জটলা এক পর্যায়ে ঝগড়া ও হাতাহাতির রূপ নেয়। শেষ পর্যন্ত খেলা বন্ধ করে দিয়ে খেলোয়াড়দের ড্রেসিংরুমে পাঠিয়ে দেয়া হয়। পরে ম্যাচটি আর মাঠে গড়ায়নি।

আর্জেন্টিনার খেলা বিষয়ক পত্রিকা টিওয়াইসি জানায়, সাইডলাইনে থাকা লোকটি ছিলেন ব্রাজিলের স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। ব্রাজিলের কোয়ারেন্টিন নিয়ম না মেনে এমিলিয়ানো মার্তিনেজ, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো ও জোভান্নি লো সেলসো ব্রাজিলে খেলতে এসেছেন। এর জন্য ব্রাজিলের জাতীয় স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধান এজেন্সির একাধিক কর্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাধিক সদস্যরা মাঠের ভেতরে ঢুকে যান। তাদের উদ্দেশ্য ছিল মার্তিনেজ, রোমেরো ও লো সেলসোকে আটক করা। বিষয়টি নিয়ে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের ওই কর্মকর্তাদের মধ্যে হাতাহাতিও হয়ে যায়। পরে এই অভিযোগের জন্য মাঠ ছেড়ে উঠে যান আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়রা।

এদিকে ম্যাচটি একেবারে বাতিল হয়ে গেলে আর্জেন্টিনারই লাভ হবে। কারণ কনমেবলের শৃঙ্খলাবিধির ৭৪ নম্বর ধারা অনুযায়ী, ম্যাচ শুরু হয়ে গেলে খেলা থামিয়ে খেলোয়াড়দের ম্যাচ খেলায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া যাবে না। যদি দেয়া হয় আর ম্যাচ মাঠে না গড়ায়, তাহলে প্রতিপক্ষরা ৩ পয়েন্ট পাবে। সেই হিসেবে খেলা না হলে, আর্জেন্টিনা ৩ পয়েন্ট পাবে।

আরআই



মন্তব্য